ফারাবীর অবস্থার উন্নতি, কথা বলতে পারছেন

অনলাইন ডেস্ক : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে হামলার শিকার হওয়া বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের নেতা তুহিন ফারাবীর শারীরিক অবস্থার উন্নতি হওয়ায় তার লাইফ সাপোর্ট খুলে নেওয়া হয়েছে। এখন তিনি কথা বলতে পারছেন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউ থেকে নিউরোলজি ওয়ার্ডে নেওয়ার প্রস্তুতি চলছে বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাসির উদ্দিন।

সোমবার তিনি সাংবাদিকদের বলেন, “এখন মোট পাঁচজন হাসপাতালে ভর্তি আছেন। আগের চেয়ে তাদের সবার অবস্থার উন্নতি হয়েছে।”

বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক ফারাবী একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়েন।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বাকি চারজন হলেন- ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নূর, সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের নেতা ফারুক হোসেন, এপিএম সোহেল ও আমিনুর।

পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন দুপুরে বলেন, “ফারাবীর লাইফ সাপোর্ট খুলে দেওয়া হয়েছে। তবে তার ইনজুরি এখনও অনেক। অনেক সেলাই দিতে হয়েছে। নূর এখন মোটামুটি সুস্থ আছে। আর সোহেল, আমিনুল আগের চেয়ে ভালো, তবে তাদেরও শরীরের বিভিন্ন জায়গায় সেলাই লেগেছে।”

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ডাকসু ভবনে রোববার হামলার শিকার হন ভিপি নুরুল হক নূর।ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ডাকসু ভবনে রোববার হামলার শিকার হন ভিপি নুরুল হক নূর।রোববার মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ নামে একটি সংগঠনের ব্যানারে কর্মসূচির পর ডাকসু ভবনে নূরদের ওপর হামলা হয়। ছাত্রলীগের একদল নেতা-কর্মীকেও এই হামলায় দেখা যায়।

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতারা রাতে হাসপাতালে নূরকে দেখে আসার পর সাড়ে ১০টার দিকে হাসপাতালে যান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান, যিনি পদাধিকার বলে ডাকসুর সভাপতি। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর গোলাম রাব্বানীও এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন।

হাসপাতালে নূরের সমর্থকদের তোপের মুখে পড়তে হয় উপাচার্য ও প্রক্টরকে। নূরের সমর্থকরা সেখানে উপাচার্য ও প্রক্টরের পদত্যাগের দাবি জানায়।

বাংলাদেশ বুলেটিন/এমআর