বিএনপিকে সমাবেশ করতে দেবে না ডিএমপি

অনলাইন ডেস্ক: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের এক বছর পূর্তি উপলক্ষে সমাবেশ করার ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি।কিন্তু বিএনপিকে সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হয়নি। কর্মদিবসে রাস্তা বন্ধ করলে জনদুর্ভোগ হবে বলে দলটিকে সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হয়নি বলে জানান ডিএমপি কমিশনার মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম।

সোমবার দুপুরে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে অথবা সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে এই সমাবেশ করতে চায় দলটি।এরই মধ্যে সমাবেশ করার কথা পুলিশকে জানিয়েছে বিএনপি।

তবে পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে- অফিস খোলা থাকা অবস্থায় সড়ক অবরোধ করে কোনো সমাবেশ করতে দেয়া হবে না।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ডিএমপি কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা সমাবেশের কোনো অনুমতি দেইনি। আজ অফিস দিন। অফিস দিনে রাস্তা অবরোধ করে কোনো রাজনৈতিক কর্মসূচি আমরা অ্যালাউ করব না।

এর আগে রোববার নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘৩০ ডিসেম্বর, ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে, যা ইতিমধ্যেই আপনাদের অবহিত করা হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ উপলক্ষে দেশব্যাপী বিএনপি সভা-সমাবেশ-মিছিল, কালোব্যাজ ধারণ এবং দলীয় কার্যালয়গুলোতে কালো পতাকা উত্তোলন করবে।

রিজভী বলেন, ঢাকায় দিবসটি উপলক্ষে নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ের সামনে অথবা সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে দুপুর ২টায় সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। সমাবেশের কথা পুলিশকে অবহিত করা হয়েছে।

বিএনপির নয়াপল্টন কার্যালয়ের সামনে ককটেল বিস্ফোরণ নিয়ে শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘এটা সাধারণ ককটেল। শক্তিশালী আইইডি না। এই ককটেল ফুটলে শুধু শব্দ করে। কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয় না।’

ডিএমপি কমিশনার বলেন, ‘নয়াপল্টনের ব্যস্ততম সড়কে শত শত যানবাহন চলাচল করে। কোন গাড়ি থেকে কে এটি করছে সেটা বোঝা কঠিন। আমাদের গোয়েন্দা সংস্থা এ নিয়ে কাজ করছে। এছাড়া ওই এলাকাকে সিসি ক্যামেরার আওতায় নিয়ে আসা হবে। ইতিমধ্যে সে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।’

বাংলাদেশ বুলেটিন/এসকে