বিশ্বমানের সশস্ত্র বাহিনী গড়ে তোলা হচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক: আধুনিক বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে দেশের সশস্ত্র বাহিনী গড়ে তোলা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গত ১০ বছরে সশস্ত্র বাহিনীকে আধুনিকায়ন করা হয়েছে বলেও জানান সরকারপ্রধান।

রবিবার সকালে মিরপুরের সামরিক বাহিনী কমান্ড ও স্টাফ কলেজে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। এদিন তিনি কোর্স উত্তীর্ণকারী সামরিক কর্মকর্তাদের মধ্যে সনদ বিতরণ করেন।

সশস্ত্র বাহিনীর প্রশংসা করে প্রধানমন্ত্রী জানান, দুর্যোগ মোকাবেলাসহ সব কাজে সুনাম অর্জন করেছে সশস্ত্র বাহিনী। জাতিসংঘের শান্তিরক্ষী মিশনে বাংলাদেশের সামরিক বাহিনী ভূয়সী প্রশংসা কুড়িয়েছে।

শেখ হাসিনা বলেন, শুধু সামরিক অফিসার হিসেবে নয়, মানবিক গুণাবলীর কারণে বাংলাদেশের সেনারা মানুষের মন জয় করতে সক্ষম হয়েছে।

সরকারপ্রধান জানান, বিগত ১০ বছর ক্ষমতায় থাকালে দেশের আর্তসামাজিক উন্নতির পাশাপাশি সামরিক বাহিনীকে আধুনিক ও যুগোপযোগী করে গড়ে তোলার চেষ্টা চালিয়েছেন তিনি।

শেখ হাসিনা জানান, মিরপুরে সামরিক বাহিনী কমান্ড ও স্টাফ কলেজ তিনি প্রতিষ্ঠা করেন এবং আজ প্রতিষ্ঠানটি আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সুনাম কুড়িয়েছে। শুরু করলে পারা যায় সেটা প্রমাণিত হয়েছে বলে মনে করেন তিনি।

এবছর বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ১২৫ জন অফিসার, নৌবাহিনীর ৩৪ জন অফিসার ও বিমান বাহিনীর ২২ জন অফিসার ডিএসসিএসসি কোর্সে উত্তীর্ণ হয়েছেন। এছাড়া চীন, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, কুয়েত, মালয়েশিয়া, মালদ্বীপ, নেপাল, নাইজেরিয়া, পাকিস্তানসহ কয়েকটি দেশের ৫৪জন সেনা কর্মকর্তার হাতে সনদ তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

২০১৯-২০২০ কোর্সে মোট ২৩৫ জন কর্মকর্তা গ্রাজুয়েশন সম্পন্ন করেছেন।

বাংলাদেশ বুলেটিন/এস কে