উপকূলে আঘাত হেনেছে ঘূর্ণিঝড় আম্ফান

বুলেটিন প্রতিবেদক : বাংলাদেশের সুন্দরবনের উপকূলে আঘাত হেনেছে ঘূর্ণিঝড় আম্ফান। আজ বুধবার বিকেল চারটা থেকে এটি সাগর উপকূলের পূর্ব দিকে সুন্দরবন ঘেঁষা অতিক্রম করছে। অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের প্রভাবে খুলনা, যশোর, বরগুনা, পটুয়াখালী ও বরিশালে ইতোমধ্যে ঝড়ো হাওয়া শুরু হয়েছে। বুধবার রাত ৮টার মধ্যে উপকূল অতিক্রম করার আশঙ্কা রয়েছে আম্ফানের।

ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৮৫ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ১৮০ কিলোমিটার, যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া আকারে ২০০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। ঘূর্ণিঝড় অতিক্রমকালে এই এলাকাগুলোতে ঘণ্টায় ১৪০ থেকে ১৬০ কিলোমিটার গতিতে বাতাস প্রবাহিত হতে পারে।

আম্ফানের প্রভাবে চার সমুদ্রবন্দর ও তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরসমূহ বিশেষ করে পায়রা ও মোংলার কাছাকাছি দ্বীপ ও নিম্নাঞ্চলগুলোয় স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ১০ থেকে ১৫ ফুট অধিক উচ্চতায় প্লাবিত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। ঘূর্ণিঝড় অতিক্রমের সময় এসব এলাকায় ও অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরসমূহে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিরও আশঙ্কা রয়েছে।

এদিকে, সাতক্ষীরার উপকূলে আঘাত হেনেছে ঘূর্ণিঝড় আম্ফান। বুধবার (২০ মে) বিকেল ৪টার দিকে সাতক্ষীরা উপকূলে ২০-৩০ কিলোমিটার গতিতে আঘাত হানে আম্ফান।

একই সঙ্গে ধীরে ধীরে আঘাতের মাত্রা বাড়ছে আম্ফানের। বুধবার রাত ৮টার দিকে ১৮০-২০০ কিলোমিটার গতিতে উপকূলে আঘাত হানবে আম্ফান। এসব তথ্য জানিয়েছেন সাতক্ষীরা আবহাওয়া অধিদফতরের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জুলফিকার আলী।

তিনি বলেন, বুধবার রাত ৮টার দিকে ঘূর্ণিঝড়টি পুরোদমে আঘাত হানবে উপকূলে। বিকেল ৪টার দিকে সাতক্ষীরা উপকূলে ২০-৩০ কিলোমিটার গতিতে আঘাত হানার পর ধীরে ধীরে মাত্রা বাড়ছে আম্ফানের। বর্তমানে ঘূর্ণিঝড়টি ঘণ্টায় ২০ কিলোমিটার গতিবেগে এগোচ্ছে। রাত ৮টার দিকে ঘণ্টায় গতিবেগ থাকবে ১৮০-২০০ কিলোমিটার।

আবহাওয়া অফিস বলছে, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত এবং কক্সবাজার ও চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দরকে ৯ নম্বর মহাবিপদ সংকেত দেখানো হয়েছে। চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরগুলো কাছাকাছি অনেকেই অবস্থান করছেন। তাদেরকে আমরা বলব, এখনও সময় আছে আপনারা নিরাপদ আশ্রয়ে চলে যান। তা নাহলে বিপদে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে।

বুধবার (২০ মে) বিকেল ৪টার পর বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদফতরের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে এসে লাইভে এসব তথ্য জানান এক আবহাওয়াবিদ।

এ সময় জানানো হয়, ঘূর্ণিঝড় আম্ফান আর কিছুক্ষণের মধ্যে উপকূল অতিক্রম শুরু করবে। হয়তো বিকেল ৪টা থেকে রাত ৮টার মধ্যে উপকূল অতিক্রম করা শুরু করবে। উপগ্রহের ছবি থেকে আমরা দেখছি যে, ঘূর্ণিঝড়টি উপকূল অতিক্রম শুরু করেছে। ঘূর্ণিঝড়টির সবচেয়ে কাছকাছি অবস্থানে আছে মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দর। চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর মোটামুটি অনেক দূরে আছে। ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে খুলনা ও এর পার্শ্ববর্তী এলাকা, খুলনা, যশোর, বরগুনা, পটুয়াখালী, বরিশাল– এই এলাকাগুলোতে ঝড়ো হাওয়া শুরু হয়ে গেছে ইতোমধ্যে। এটি আর কিছুক্ষণের মধ্যে বাংলাদেশের উপকূলের কাছাকাছি এলাকায় চলে আসবে। সাগর আইল্যান্ডের কাছাকাছি যে রাডার ছবি আছে, তাতে দেখা গেছে, সাগর আইল্যান্ডের কাছাকাছি এলাকাতে এটি অবস্থান করছে। অর্থাৎ, ঘূর্ণিঝড়ের চোখ সাগর আইল্যান্ডের কাছাকাছি এলাকা দিয়ে বাংলাদেশের সুন্দরবনকে পূর্বে রেখে এটি অতিক্রম শুরু করেছে।

এমআইপি/প্রিন্স