ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের তাণ্ডবে ছয় জেলায় নিহত ৯

বুলেটিন নিউজ ডেস্ক : বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের প্রভাবে পটুয়াখালীতে শিশুসহ দু্ইজন, ভোলায় দুইজন, চট্টগ্রামের সন্দ্বীপে একজন, পিরোজপুরে একজন, যশোরে দুইজন ও সাতক্ষীরায় একজন নিহত হয়েছেন। আমাদের প্রতিবেদকদের পাঠানো খবরে বিস্তারিত-

পটুয়াখালী প্রতিনিধি জানান, বুধবার (২০ মে) সন্ধ্যায় গলাচিপা উপজেলার পানপট্টি এলাকায় ঝড়ো হাওয়ায় গাছের ডাল ভেঙে পড়ে রাসেদ (৬) নামে এক শিশু ও কলাপাড়ায় মানুষকে সচেতন করতে গিয়ে ধানখালীর ছৈলাবুনিয়া এলাকায় খালে নৌকা ডুবে শাহ আলম নামে এক স্বেচ্ছাসেবীর মৃত্যু হয়েছে। গলাচিপা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুল ইসলাম শিশুটির মৃত্যু ঘটনা নিশ্চিত করেছেন।

কলাপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু হাসনাত মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ জানান, কলাপাড়ায় ঘূর্ণিঝড় আম্ফান মোকাবিলায় মানুষকে সচেতন করতে গিয়ে সকালে ধানখালীর ছৈলাবুনিয়া এলাকায় খালে নৌকা ডুবে নিখোঁজ স্বেচ্ছাসেবী শাহ আলমের মরদেহ সন্ধ্যায় উদ্ধার করেছে ডুবুরি দল।

এদিকে সুপার সাইক্লোন আম্ফানের প্রভাবে দক্ষিণ উপকূল সংলগ্ন সাগরে উচ্চ ঢেউ ও নদীতে জোয়ারের পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। বাতাসের তীব্রতা বেড়েই চলছে। উচ্চ জোয়ারে নদী-নদীর পানি স্বাভাবিকের চেয়ে ৪-৫ ফুট বৃদ্ধি পেয়েছে। পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় অর্ধশত চরসহ নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

ভোলা প্রতিনিধি জানান, ঘূর্ণিঝড় আম্পানের প্রভাবে সকাল থেকে দ্বীপ জেলা ভোলায় ঝড়ো বাতাস বইছে। প্রচণ্ড টেউয়ে নদী উত্তাল রয়েছে। ইতোমধ্যে ঢাল চর, চর নিজামসহ অনেক চরাঞ্চল ৪ থেকে ৫ ফুট পানিতে তলিয়ে গেছে।

ঘূর্ণিঝড় আম্পানের প্রভাবে ভোলার চরফ্যাশনে ঝড়ে একটি গাছ ভেঙে চাপা পড়ে ছিদ্দিক ফকির (৭০) নামে এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে।

ভোলার পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার আহমেদ জানান, ভোলার চরফ্যাশন উপজেলায় বয়স্ক ভাতা নেয়ার জন্য যাচ্ছিলেন ছিদ্দিক ফকির। এ সময় দক্ষিণ আইচা এলাকায় তার ওপর গাছের ডাল ভেঙে পড়ে। গুরুতর আহত অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পর তার মৃত্যু হয়।

এছাড়া ভোলার বোরহানউদ্দিনের হাসান নগর ইউনিয়নের রফিকুল ইসলাম (৩৫) নামের এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। ভোলার বোরহানউদ্দিন থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ এনামুল হক জানান, লক্ষীপুর থেকে ট্রলারে করে ভোলায় আসার পথে আলতু মিয়ার ঘাট এলাকায় মেঘনা নদীতে ডুবে রফিকুল ইসলাম মারা গেছেন।

অন্যদিকে, দ্বীপ উপজেলা সন্দ্বীপে আম্ফান আসার আগেই জোয়ারের পানিতে ডুবে মো. সালাউদ্দিন (১৮) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়। দুপুরের দিকে সন্দ্বীপ পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডে এ দুর্ঘটনা ঘটে। সন্দ্বীপ থানার পরিদর্শক তদন্ত মো. সোলাইমান জানান, উপকূলে ঘাস কাটতে গিয়ে ওই যুবক জোয়ারের পানিতে পড়ে যান। পরে স্থানীয়রা তার মরদেহ উদ্ধার করে।

অন্যদিকে, পিরোজপুর প্রতিনিধি জানিয়েছেন, জেলার মঠবাড়িয়া উপজেলা শহরের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের ১ নম্বর সড়কে দেয়াল চাপা পড়ে এক ব্যক্তি মারা গেছেন। তার নাম শাজাহান মোল্লা (৬০)। রাত সাড়ে আটটায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। মঠবাড়িয়া থানার ওসি মাসুদুজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তার গ্রামের বাড়ি গিলাবাদ।

যশোর প্রতিনিধি জানান, যশোরে সর্বোচ্চ ১৩৫ কিলোমিটার বেগে ঝড়ো হওয়ার খবর দিয়েছে স্থানীয় আবহাওয়া অফিস। গোটা জেলার বিভিন্ন এলাকায় গাছপালা, ঘরবাড়ি ভেঙে যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে। চৌগাছায় গাছ চাপা পড়ে মা ও মেয়ের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি জানান, সাতক্ষীরা শহরের সংগীতা মোড় এলাকায় আম কুড়াতে গিয়ে ঝড়ের কবলে পড়ে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। রাত ৮টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। নিহত ওই মধ্য বয়সী নারী শহরের কামালনগর এলাকার বাসিন্দা।

সাতক্ষীরা সদর থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আসাদুজ্জামান জানান, ঝড়ের মধ্যে আম কুড়াতে গিয়ে গাছের ডাল ভেঙে পড়ে ওই নারীর মৃত্যু হয়েছে। তবে তার নাম পরিচয় জানা যায়নি। এখনও রাত সাড়ে ৯টার দিকেও প্রচণ্ড গতিবেগে ঝড় চলছে বিস্তারিত এখনও জানা যায়নি।

এমআইপি/প্রিন্স