যে কারণে নাফিস ইকবালকে ভোলেননি রোহিতের স্ত্রী?

স্পোর্টস ডেস্ক : ভারত কিংবা মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের হয়ে স্বামী রোহিত শর্মা যখন ব্যাটিংয়ে থাকেন, তখন কিছুতেই জায়গা বদল করেন না ঋতিকা। যে জায়গায় বসেন, সেখান থেকে নড়েন না বা নড়তে চান না। ভাবেন, তাতে দল ও স্বামী রোহিতের অকল্যাণ হবে!

শুক্রবার রাতে তামিম ইকবালের ফেসবুক লাইভে কথা প্রসঙ্গে এটি জানালেন রোহিত শর্মা। তামিম রসিকতার সুরে জানতে চাইলেন, ‘আচ্ছা রোহিত ভাই, আমার বড় ভাই নাফিস ভাইয়ের কথা আপনার মনে আছে? তিনি তো আগেরবার বিপিএলে ছিলেন আপনার দলের সঙ্গে।’

রোহিতের তৎক্ষণাৎ জবাব, ‘আরে হ্যাঁ! নাফিস ভাই তো আমাদের মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের সঙ্গে ছিলেন। গতবার নয় ২০১৮ সালে, যেবার মোস্তাফিজ মুম্বাইয়ে খেলেছিল। জানো, আমার স্ত্রীও নাফিস ভাইয়ের কথা বলেছে এবং তাকে স্বাগত জানানোর কথাও মনে করিয়ে দিয়েছে।’

‘আমার স্ত্রী নাফিস ভাইকে খুব মনে রেখেছে। কারণ নাফিস ভাই তাকে ফ্রেঞ্চ ফ্রাই খাইয়েছিলেন আর আমার স্ত্রীকে কেউ ফ্রেঞ্চ ফ্রাই খাওয়ালে সে তা ভোলে না, মনে রাখে।’

এরপর তামিম প্রসঙ্গটা টেনে নেন অন্যদিকে, ‘আচ্ছা, রোহিত ভাই আপনি কি জানেন, মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের এক ম্যাচে আমার ভাই নাফিস প্রচন্ড ক্ষুধার্ত অবস্থায় ভাবী মানে আপনার স্ত্রীর কারণে খেতে নিচে নামতে পারেননি? আপনার স্ত্রী আর নাফিস ভাই একসঙ্গে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের খেলা দেখছিলেন। নাফিস ভাই যখন আপনার ওয়াইফকে বললেন, প্রচন্ড ক্ষুধা পেয়েছে, আমি নিচে গিয়ে কিছু খেয়ে আসি। তখন ভাবি তাকে না করে দিয়ে বলেছিল, না না! এখন নিচে যাওয়া যাবে না। যতক্ষণ খেলা শেষ না হয় ততক্ষণ নড়াচড়া করা ঠিক হবে না।’

রোহিত হেসে বলেন, ‘জানি। পুরো ঘটনাই জানা। আসলে আমা স্ত্রী খুবই সংস্কারবাদী। সে সংস্কারে বিশ্বাস করে। খেলার সময় যেখানে বসে, সেখান থেকে আর সহজে নড়া চড়া করে না। পাছে দলের অমঙ্গল হয়- এই ভেবে আর ওঠে না। তার সঙ্গে যারা খেলা দেখতে বসে, তাদেরও উঠতে দেয় না। নাফিস ভাইকেও সে কারণেই উঠতে দেয়নি। আসলে যারা সংস্কার মানেন তারা এমনই হয়।’

এমআইপি/প্রিন্স