ঢাকা, শনিবার, ৩১ জুলাই ২০২১ ই-পেপার

মুজিব শতবর্ষে প্রধানমন্ত্রীর উপহার : চট্টগ্রামে জমিসহ ঘর পাচ্ছে আরো ৬৪৯ পরিবার

কামরুজ্জামান রনি, চট্টগ্রাম :

২০২১-০৬-১৭ ১৭:৫৮:০৮ /

মুজিব শতবর্ষে একজন লোকও গৃহহীন থাকবে না’ এ প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে রেখে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা বাস্তবায়নে আশ্রয়ণ প্রকম্পে চট্টগ্রামে ২য় দফায় আরো ভূমিহীন ও গৃহহীন ৬৪৯টি পরিবারকে জমিসহ ঘরের মালিকানা হস্তান্তর করছে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন।

বৃহস্পতিবার (১৭ জুন) বেলা সাড়ে বারটার দিকে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমান বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় সারাদেশে ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে ২ শতাংশ জমিসহ সম্পূর্ণ সরকারি অর্থায়নে ঘর প্রদান কার্যক্রম গ্রহণ করেছে। তারই ধারাবাহিকতায় ১ম পর্যায়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী চলতি বছরের ২৩ জানুয়ারি সারাদেশে ৬৯ হাজার ৯০৪টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে ২ শতাংশ জমিসহ ঘর বরাদ্দ প্রদান কার্যক্রম উদ্বোধন করেন।

সারাদেশের ন্যায় চট্টগ্রাম জেলায় ১ম পর্যায়ে ১ হাজার ৪৪৪টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে ২ শতাংশ জমিসহ সম্পূর্ণ সরকারি অর্থায়নে ঘর প্রদান করা হয়েছে।  

জেলা প্রশাসক আরও বলেন, আগামী ২০ জুন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ১ম পর্যায়ের এ কার্যক্রম উদ্বোধন করবেন। এ কার্যক্রমে চট্টগ্রাম জেলার ১৩টি উপজেলার ৬৪৯টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে গৃহ প্রদান করা হবে। যে ঘরগুলো দেওয়া হচ্ছে সেগুলোতে ২টি বেডরুম, ১টি রান্না ঘর, বারান্দা, বাথরুম। 

এছাড়াও ১০টি ঘরের জন্য একটি করে ডিপ টিউবওয়েল। প্রথম পর্যায়ে একটি ঘর নির্মাণকাজ সম্পন্ন করতে ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। দ্বিতীয় পর্যায়ের জন্য ১ লাখ ৯০ হাজার টাকা প্রতিটি ঘরের জন্য খরচ হয়েছে বলে জানানো হয়েছে।   

জেলা প্রশাসক জানান, ২০ জুন রাঙ্গুনিয়া উপজেলার ২ নম্বর বেতাগী ইউনিয়নের বহলপুর গ্রামে ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে সংযুক্ত হবেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী। সময় সেখানে উপজেলার বহলপুর গ্রামে একসাথে ৩০টি পরিবারকে পুনর্বাসন করা হচ্ছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এ অনন্য উদ্যোগে এখন শামিল হবার জন্য বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিবর্গ এগিয়ে এসেছেন। ইতিমধ্যে বেসরকারি উদ্যোগে চট্টগ্রাম জেলায় ১২০টি ঘর নির্মাণ সম্পন্ন হয়েছে। এছাড়া বড় বড় শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলো প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্প খাতে অর্থ অনুদান দিচ্ছে। অচিরেই বেসরকারি অনুদানে চট্টগ্রামসহ সারাদেশে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য গৃহ নির্মাণ করা হবে।"

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, চট্টগ্রাম জেলার রাঙ্গুনিয়া উপজেলায় ৫০টি, পটিয়া উপজেলায় ৩০টি, চন্দনাইশ উপজেলায় ২৭টি, সাতকানিয়া উপজেলায় ১০টি, লোহাগাড়া উপজেলায় ১৫০টি, বাঁশখালী উপজেলায় ১৪টি, কর্ণফুলী উপজেলায় ৫টি, বোয়ালখালী উপজেলায় ২০টি, রাউজান উপজেলায় ২৪৮টি, হাটহাজারী উপজেলায় ১০টি, আনোয়ারা উপজেলায় ৫০টি, মীরসরাই উপজেলায় ২৫টি, সীতাকুণ্ড উপজেলায় ১০টি সহ সর্বমোট ৬৪৯টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে গৃহ প্রদান করা হবে।

সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে জেলা প্রশাসক মমিনুর রহমান জানিয়েছেন, দুই ক্যাটাগরিতে ঘর দেয়া হচ্ছে। যাদের ভূমি ও ঘর দুটিই নেই। আর যাদের জমি আছে কিন্তু থাকার ঘর নেই। যাদের ভূমি ও ঘর দুটিই নেই এমন ৯ হাজার ১২৪ জনের তালিকা তৈরি করা হয়েছে। এর মধ্যে সরকারিভাবে ২ হাজার ৯৯ জন ও বেসরকারিভাবে ১২৩ জনকে ঘর বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। আগামী এক বছরের মধ্যে সবাইকে ঘর করে দেয়া হবে। জমি আছে ঘর নেই এমন ৭ হাজার ৪৭৮ জনের তালিকা তৈরি করা হয়েছে। তবে সেই কার্যক্রম এখনো শুরু হয়নি।  

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সুমনী আক্তার সহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

বাবু/প্রিন্স

এ জাতীয় আরো খবর

সংসদ সদস্য আলী আশরাফের মৃত্যুতে পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রীর শোক

সংসদ সদস্য আলী আশরাফের মৃত্যুতে পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রীর শোক

কক্সবাজারে মাদকাসক্ত ছেলের হাতে বাবা খুন

কক্সবাজারে মাদকাসক্ত ছেলের হাতে বাবা খুন

মহেশখালীতে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

মহেশখালীতে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

রূপগঞ্জে ডাকাত দলের দুই সদস্য গ্রেফতার

রূপগঞ্জে ডাকাত দলের দুই সদস্য গ্রেফতার

বড়াইগ্রামে নিখোঁজের ৬ দিন পর ডোবা থেকে বৃদ্ধার মৃতদেহ উদ্ধার

বড়াইগ্রামে নিখোঁজের ৬ দিন পর ডোবা থেকে বৃদ্ধার মৃতদেহ উদ্ধার

কেরানীগঞ্জের আগানগরে মশক নিধন কর্মসূচি

কেরানীগঞ্জের আগানগরে মশক নিধন কর্মসূচি