ঢাকা, রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ ই-পেপার

অবশেষে বহদ্দারহাটে ওজনে কারচুপির ঘটনায় থানায় জিডি গ্রহণ

চট্টগ্রাম ব্যুরো :

২০২১-০৭-১১ ১৫:৪৬:০৩ /

নগরীর বহদ্দারহাট বাজারে ওজনে কম দেয়ার প্রতিবাদ করায় ক্রেতাকে নাজেহাল ও মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে দেয়ার হুমকি ও ভয়ভীতি প্রদর্শনের ঘটনায় ভুক্তভোগীর অভিযোগকে অবশেষে সাধারণ ডায়েরি হিসেবে নথিভুক্ত করলো চাদগাঁও থানা। 

যদিও ঘটনার পর থানার ওসি মুস্তাফিজুর রহমান পুরো ঘটনাকে ধামাচাপা দিতে গণমাধ্যমের কাছে সেদিন তেমন কোন ঘটনাই ঘটেনি বলে জানিয়েছিলেন৷ 

ঘটনার পর সরেজমিন ঘুরে সেদিনই বাংলাদেশ বুলেটিনে বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশ করে৷ সে প্রতিবেদনে বহদ্দারহাট বাজারে মুরগি বিক্রেতার ওজনে কারচুপি এবং ভুক্তভোগীর অভিযোগের নানান তথ্য প্রকাশ হয়। এই প্রতিবেদন প্রকাশের পর সংশ্লিষ্ট মহল থেকে এই বিষয়ে সঠিক পথে এগুতে কড়া বার্তা যায় চান্দগাঁও থানায়। এরপরই বাজার ইজাদার ও কমিটির পক্ষ নেওয়া হিসেবে চিহ্নিত চান্দগাঁও থানার পুলিশ ভুক্তভোগীর অভিযোগটিকে জিডি হিসেবে গ্রহণ করেন৷ 

শনিবার (১০ জুলাই) স্থানীয় ঘাসিয়াপাড়ার বাসিন্দা ভুক্তভোগী মোঃ সুমন (২৬) এর অভিযোগটিকে জিডি হিসেবে লিপিবদ্ধ করা হয় (জিডি নং-৫০৮/২১)। জিডিতে বিবাদী হিসেবে শহিদ হোসেন(৩৫) পিতা মৃত কবির আহমদ, বদিউল আলম (৫২) পিতা মৃত মোঃ হোসেন এবং জানে আলম পিতা মৃত রাজা মিয়াকে বিবাদি করা হয়েছে৷ 
জিডির তথ্য অনুযায়ী শহিদ হোসেনের দোকান থেকে ৯ জুলাই বিকেল ৪টায় কেনা মুরগিতে ওজন কম পাওয়ায় এই সংক্রান্ত অভিযোগ জানাতে গেলে বিবাদিরা মুরগি ক্রেতা মোঃ সুমনকে নানা প্রকার গালমন্দ ও মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে দেয়ার হুমকি ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করা হয় বলে উল্লেখ করা হয়েছে৷ 

এই বিষয়ে ভুক্তভোগী সুমন জানান, আমি থানায় অভিযোগ দিয়েছিলাম৷ সেখানে আমি উল্লেখ করেছিলাম, বহদ্দারহাট কাঁচাবাজারের চকরিয়া শাহ উমর পল্ট্রি ফার্ম নামের দোকান থেকে মোট তিনটি মুরগি ক্রয় করি। একটি ফার্মের মুরগির ওজন হয় ২ কেজি ৪ শত গ্রাম। দুটি সোনালী মুরগির ওজন হয় এক কেজি ৯শ’ গ্রাম। এই ওজন হিসেবে মুরগিগুলোর টাকা পরিশোধ করার পর জবাই করে দিতে চাইলে আমি জবাই করতে বারন করি তবুও তারা জোর করে জবাই করতে চাইলে আমার মনে সন্দেহ হয়। আমি মুরগি জবাই না করে নিজ এলাকায় এসে মুদি দোকানে আবার মেপে দেখি ২ কেজি ৪শ’ গ্রাম ওজনের ফার্মের মুরগির প্রকৃত ওজন ১ কেজি ৭৫০ গ্রাম। আর সোনলী মুরগি ২টি ১ কেজি ৯০০ গ্রাম এর স্থলে ১ কেজি ৭৫০ গ্রাম হয়। সর্বমোট ৩টি মুরগিতে দোকানদার ১ কেজি ১৭০ গ্রাম কম দেয়। এই বিষয়ে এলাকার লোকজন নিয়ে প্রতিবাদ করতে গেলে বিবাদীরা অন্যান্য লোকজন নিয়ে আমাকে লাঞ্চিত করে এবং পরবর্তিতে এলাকার লোকজনদের মিথ্যা অপবাদ ও গণ মামলার ভয় দেখায়। 

সুমন আরো বলেন, আমিতো টাইপকৃত অভিযোগ দিয়ে ছিলাম কিন্তু থানার পুলিশ সেটিকে জিডি হিসেবে এন্ট্রি করেছে৷ তবুও ভাগ্য ভালো যে পুলিশ আমাকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে দেয় নাই৷ 

এই বিষয়ে থানার ওসির সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি৷ 

বাবু/প্রিন্স

এ জাতীয় আরো খবর

পরী-সাকলায়েনের ভিডিও ভাইরাল (ভিডিও)

পরী-সাকলায়েনের ভিডিও ভাইরাল (ভিডিও)

নগরীতে বেপরোয়া ব্যাটারি চালিত রিকশা; হরহামেশাই ঘটছে দুর্ঘটনা

নগরীতে বেপরোয়া ব্যাটারি চালিত রিকশা; হরহামেশাই ঘটছে দুর্ঘটনা

মুনিয়া হত্যায় নতুন মোড়; অভিযোগকারীই এখন অভিযুক্ত

মুনিয়া হত্যায় নতুন মোড়; অভিযোগকারীই এখন অভিযুক্ত

সিআরবি এলাকায় হাসপাতাল : দুই দিনে দুই সাধারণ সম্পাদকের দুই রকম কথা

সিআরবি এলাকায় হাসপাতাল : দুই দিনে দুই সাধারণ সম্পাদকের দুই রকম কথা

সাবেক ২য় স্ত্রীর বর্তমান স্বামীকে প্রাণনাশের হুমকি দিলেন ডাঃ ফয়সাল

সাবেক ২য় স্ত্রীর বর্তমান স্বামীকে প্রাণনাশের হুমকি দিলেন ডাঃ ফয়সাল

চট্টগ্রামে পুলিশ সদস্যের ইয়াবা সেবনের ভিডিও ভাইরাল (ভিডিও সহ)

চট্টগ্রামে পুলিশ সদস্যের ইয়াবা সেবনের ভিডিও ভাইরাল (ভিডিও সহ)