ঢাকা, রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ ই-পেপার

নেত্রকোনায় আউশের ফলনে কৃষকের মুখে তৃপ্তির হাসি

সোহেল খান দূর্জয়, নেত্রকোনা :

২০২১-০৭-৩০ ১৩:১০:৩৮ /

নেত্রকোনার কৃষি প্রধান জনপদ বারহাট্টা উপজেলার ফসলের মাঠে শুরু হয়েছে আউশ ধান কাটার উৎসব। বারহাট্টা উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় আউশ ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। আউশের ফলন দেখে কৃষকের মুখে ফুটেছে তৃপ্তির হাসি।

এবার লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি ফলন হওয়ায় আউশ চাষে আগ্রহ বাড়ছে বারহাট্টার কৃষকদের। বারহাট্টা উপজেলার কৃষকরা উন্নত জাতের (ব্রি ধান৪৮, ব্রি ধান৮২, ব্রি ধান৮৫,  বিনাধান১৯) আউশ ধান চাষ করে অন্যান্য বছরের তুলনায় বেশি ফলন পেয়েছেন।

তবে উপজেলার ৩নং বারহাট্টা সদর ইউনিয়নে আউশের আবাদ বেশি হয়েছে বলে জানা যায়।

উপজেলা কৃষি অফিস তথ্যমতে, বোরো ও আমন অধ্যুষিত বারহাট্টায় আউশ আবাদের পরিমাণ খুবই কম। তবে গত দুই বছর ধরে কৃষি বিভাগ আধুনিক জাতের সমন্বয়ে আউশ চাষ বৃদ্ধির লক্ষ্যে কাজ করছে। চলতি মৌসুমে ৩৫ হেক্টর জমিতে আউশ ধান চাষ হয়েছে।

একটা সময় ছিলো, বারহাট্টায় স্থানীয় জাত তথা কাজলআইল, চিনালধান, ভিন্নাতোয়া, ধলবাচাই, বৈলাম, আশ্বিনী, নাজিরআইল, বাধই, হলোই ধান, বাতুইধান, জিইস ধান ও পাইজম ধান এসব জাতের ধান হতো।

বর্তমানে ব্রি ও বিনা গবেষণা কর্তৃক বেশ কতোগুলো আধুনিক জাত উদ্ভাবন করায় কৃষি বিভাগ দ্রুতই জাতগুলো কৃষকের মাঠে ছড়িয়ে দিচ্ছে। 

এ উপজেলার কৃষকরা আউশ মৌসুমে স্থানীয় জাতের আউশ চাষ করতেন। এ জাতের আউশ ধানের ফলন খুবই কম হওয়ায় কৃষকরা আউশ ধান চাষে দিনে দিনে আগ্রহ হারাচ্ছিলেন। চলিত মৌসুমে আউশের বাম্পার ফলন হওয়ায় আউশ চাষে কৃষকরা আগামীতে ব্যাপকভাবে উৎসাহিত হবেন বলে আশা করছে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর।

এদিকে উপজেলার  ৩নং সদর ইউনিয়নের কাশতলা গ্রামের আউশ চাষি ফজলুর বলেন, আমাদের বাপ-দাদাদের আমল থেকে আমরা আমাদের চাষের জমি থেকে স্থানীয় জাতের ধান বীজ সংগ্রহ করে সাধারণ চাষাবাদ করতাম। এতে সমস্যা হলো বিভিন্ন ধরনের মিশ্রিত ধান হতো এবং ফসলও কম হতো। বর্তমানে ভালো জাতের বীজ ব্যবহার করায় খরচ কম অথচ ফলন বেশি, তাই আমরা খুশি।

উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মোহাইমিনুর রশিদ বলেন, প্রকৃতি নির্ভর আদি ধান আউশ। বারহাট্টা আউশ আবাদের বেশ সুযোগ আছে। নতুন নতুন প্রযুক্তি কৃষকের মাঝে ছড়িয়ে দিতে কৃষি বিভাগ কাজ করে যাচ্ছে। সদাশয় সরকার প্রণোদনা কার্যক্রমের আওতায় আউশ বীজ, সার দিয়ে চাষীদের উৎসাহিত ও সহযোগিতা করেছে। এতে কৃষকেরা উৎসাহিত হচ্ছেন। আগামিতে আউশ আবাদ আরো অনেক বেশি বৃদ্ধি পাবে বলে মনে করেন এই কর্মকর্তা। 

বাবু/ রনি

এ জাতীয় আরো খবর

আশ্রয়হীন শিশুদের নিরাপদ আশ্রয় ‘ডিআইএসএস’

আশ্রয়হীন শিশুদের নিরাপদ আশ্রয় ‘ডিআইএসএস’

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু আমার নানা ভাই...

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু আমার নানা ভাই...

ত্রিশ বছরেও সংস্কার হয়নি সেতু বন্ধনের ব্রীজ

ত্রিশ বছরেও সংস্কার হয়নি সেতু বন্ধনের ব্রীজ

নারী নির্যাতন প্রতিরোধে  পেশাজীবী নারীদের ভাবনা

নারী নির্যাতন প্রতিরোধে পেশাজীবী নারীদের ভাবনা

জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সেতু পারাপার

জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সেতু পারাপার

আধুনিকতার ছোঁয়া লেগেছে সাগুতেও

আধুনিকতার ছোঁয়া লেগেছে সাগুতেও