ঢাকা, মঙ্গলবার, ৭ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

গাছের ফেরিওয়ালা প্রভাতের দল

বুলেটিন ডেস্ক:

২০২১-০৯-২৭ ২০:৫৬:৩২ /

বর্ষার সকালে ঝুম ঝুম বৃষ্টি। কাঁধের বস্তায় গাছ লাগানো যন্ত্রপাতি। হাতে ব্যাগভর্তি গাছের চারা। বৃষ্টিতে লেফাফাদুরুস্ত হয়ে বৃক্ষ রোপণে হাজির তারা। তখন সকাল মাত্র নয়টা। বৃষ্টি ভেজা সকালে কাথা মুড়িসুরি দিয়ে ঘুম উপভোগ করছে অন্যরা। এখানেই সবার থেকে ভিন্নতা তাদের। 

সকাল বেলা গাছ লাগানোর মধ্য দিয়ে সবুজের শক্তিকে আহরণ করা যায়। এই শক্তিকে ছড়িয়ে দিতে চায় একুশের তরুণ প্রজন্মরে হৃদয়ে। সবুজের সৌন্দর্যের শক্তি মানুষের সুস্থতা ও পৃথিবীর বাস্তুতন্ত্রের রক্ষা করে। এ বিশ্বাসের বলে বৃক্ষ রোপণ করছে ‘মর্নিং স্কোয়াড’ সংগঠনটির প্রভাতের দল। 

মেঘলা বিকালে মুলের বাড়ি ব্রিজে দাঁড়িয়ে কথা হয় প্রভাত দলের সদস্যদের সাথে। তখন আলোচনা চলছিল সারা দিনের কাজ নিয়ে। তিন কি.মি. হেটে গাছ লাগিয়েও ক্লান্তির ছাপ নেই চেহারায়।

সংগঠনের শুরুর গল্পটা বলতে গিয়ে জাফর বলছিলেন, বিনামূল্যে গাছ লাগানো শুরু করি। মর্নিং স্কোয়াড নাম ছিল। সকালবেলা গাছ লাগানো উপলক্ষে আমারা প্রভাতের দল নামে পরিচিতি পাই। 

‘জীবন বাচানো গাছের কর্ম, বৃক্ষ রোপন সর্ব মানুষের ধর্ম’ এমন স্লোগান নিয়ে মানুষের দ্বারে দ্বারে গাছ পৌঁছে দেয় মর্নিং স্কোয়াড। যেটা কোনো ব্যক্তি পর্যায়ে সীমাবদ্ধতায় না রেখে সামষ্টিক ও প্রতিষ্ঠানিকভাবে পরিচালিত হয়। যেখানে মসজিদ, মন্দির, গির্জা, হাসপাতাল, পুলিশ ফাড়ি, থানা, প্রাথমিক, মাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিক  প্রতিষ্ঠানগুলোতে বৃক্ষ রোপণ হয়েছে। 

এমন কাজের উদ্দেশ্য জানতে চাওয়াতে সদস্য সাইফুল নিলয় জানালেন, প্রতিষ্ঠানিকভাবে গাছের সৌন্দর্য দেখানো যায়। তাতেই আগামী প্রজন্মের কাছে গাছের প্রতি ভাল লাগাটা বাড়বে। মানুষ ভাল লাগার কাজটা করে নিজ আনন্দ চিত্তে। ব্যক্তি আনন্দের মধ্যে দিয়ে প্রকৃত সুখ পাওয়া যায়। গাছের প্রতি আমাদের ভালবাসা ও শ্রদ্ধা সবসময়। সবাই মিলে বৃক্ষ রোপণ করি। মনে হয় একটা জীবন সত্তা  লাগিয়ে আসলাম। যার দ্বারা কেউ ক্ষতিগ্রস্ত হবে না। এটাই আমাদের জীবন ও প্রভাত দলের সার্থকতা। 

বাংলাদেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বৃক্ষ রোপণ করবে প্রভাতের দল। এমন স্বপ্নে বিভোর সংগঠনটি। কারণ জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলা গাছ লাগানোর বিকল্প নাই। এক্ষেত্রে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে একুশ শতকের শিক্ষার্থীরা। সামনের পৃথিবী কেমন দেখতে চায়, এটা তাদের উপর নিরর্ভশীল। একুশের তরুণ প্রজন্মের হাত ধরে পরিবর্তন হবে দেশের সবুজায়নের সামগ্রিক চিত্র। ত্রিশটি প্রতিষ্ঠানে পঞ্চাশের অধিক বৃক্ষ রোপণ করেছে সংগঠনটি। যা শুধু  সৌন্দর্যবর্ধন ও ঔষধি গাছ ছিল। যেমন বকুল, কৃষ্ণচূড়া, রাধচূড়া, নিম,পাম, হরতকি, বহেড়া, চামেলি, দেবদারু, ইত্যাদি। 

সংগঠনটির জনশক্তি নিয়ে কথা বলতেই জিসাদ আহমেদ জানালেন, একটা দল গঠনে যত ধরনের গুণাবলী থাকা দরকার। সব আছে মর্নিং স্কােয়াডের। তবে মাঠ পর্যায় অভিজ্ঞার দিক দিয়ে পিছিয়ে আছি। চলার পথে নিজেদের ভুল থেকে শিখে নেব। 

উপজেলার শিক্ষকেরা তাদের প্রতিষ্ঠানে আহব্বান করে প্রভাত দলকে। সামাজিক ও মানবিক দায়িত্ববোধ থেকে ২০১৮ সালের ৯ ডিসেম্বর পথ চলা শুরু হয়েছিল। সেটা পরিপূর্ণ সাংগঠনিকভাবে রূপ পায় ২০২১ সালের ৭ জুলাই।  

সংগঠনটির সহপ্রতিষ্ঠাতা রাফসান রাকিব বলছিলেন , সবচেয়ে সহজ ও সুন্দর কাজ হল বৃক্ষ রোপণ করা। যার মাধ্যমে সর্ব মানুষের কাছে যাওয়া যায়। যেখানে জাত-পাত, ধর্ম, উচু-নিচু মানুষের সেবা করা মহান সুযোগ। তাদের কাছ থেকে পাওয়া স্নেহে পাওয়ার জন্য বারবার ফিরে যাই প্রকৃতির মাঝে। আমরা মানুষ ও সবুজ প্রকৃতির মাঝে অবিচ্ছেদ্য মেল বন্ধনের রহস্য খুঁজে বেড়াই। আসুন আমরা সবাই বৃক্ষ রোপণ করি।

বাবু/ রনি

এ জাতীয় আরো খবর

বিজয়ের প্রথমদিনে সেন্টমার্টিন যাত্রা করল বিশেষ প্যাকেজ গ্রীন লাইন

বিজয়ের প্রথমদিনে সেন্টমার্টিন যাত্রা করল বিশেষ প্যাকেজ গ্রীন লাইন

বুবু তুমি কেঁদো না

বুবু তুমি কেঁদো না

গাছের ফেরিওয়ালা প্রভাতের দল

গাছের ফেরিওয়ালা প্রভাতের দল

আশ্রয়হীন শিশুদের নিরাপদ আশ্রয় ‘ডিআইএসএস’

আশ্রয়হীন শিশুদের নিরাপদ আশ্রয় ‘ডিআইএসএস’

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু আমার নানা ভাই...

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু আমার নানা ভাই...

ত্রিশ বছরেও সংস্কার হয়নি সেতু বন্ধনের ব্রীজ

ত্রিশ বছরেও সংস্কার হয়নি সেতু বন্ধনের ব্রীজ