ঢাকা, শনিবার, ১৬ জানুয়ারী ২০২১ ই-পেপার

বগুড়ায় দুই মোকামে বিক্রি হয় কোটি টাকার কলা

দীপক কুমার সরকার, বগুড়া

২০২০-১২-০৪ ২১:১২:৩৮ /

উত্তরাঞ্চলে কলারহাট বলে বিখ্যাত শিবগঞ্জের ফাঁসিতলা ও চ-ীহারা। ঢাকা-রংপুর মহাসড়কের পাশে এলাকা দু’টিতে সপ্তাহে দুইদিন করে বসে কলার জমজমাট হাট। কলার দুই মোকামে প্রতি হাটবারে বাজারমূল্য কোটির টাকারও বেশি বিক্রি হয় কলা। 

এসব হাট থেকে কলা কিনে দেশের বিভিন্ন জেলায় সরবরাহ করে থাকেন  ব্যবসায়ীরা। মহাসড়কের মোকামতলা এলাকার ফাঁসিতলা সপ্তাহের সোমবার ও শুক্রবার এবং শনিবার ও বুধবার বসে চ-ীহারা হাট। এরমধ্যে ফাঁসিতলা হাটে চ-ীহারার চেয়ে অনেক বেশি কলার আমদানি হয়। 

সরেজমিনে চ-ীহারা হাটে গিয়ে দেখা যায়, সকাল থেকে কলাচাষিরা ভ্যান-ভটভটি, ট্রলিসহ বিভিন্ন পরিবহনে কলা এনে মহাসড়কের দুইপাশে কলার কাঁদি বিছিয়ে ও স্তুপ করে সাজিয়ে রেখেছেন। বেপারিরা কলা কিনতে চাষিদের ঘিরে দরদাম করছেন। 

বাজার চড়তি থাকায় চাষিরা শুরুতে বেশি দাম চেয়ে বসছেন। তারাও যথাসাধ্য দর কষাকষি করে কলা কিনছেন। বেলা গড়াতেই ক্রেতা-বিক্রেতাদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে ওঠে পুরো মোকাম। দুপুর পর্যন্ত চলে কলা বেচাকেনা।  

হাটে আগত মোখলেছুর রহমান, ধলু মিয়া, রহমান, আফজালসহ একাধিক বেপারি জানান, জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার ফাঁসিতলা ও চ-ীহারায় কলার প্রতি হাটে প্রায় ৪৫ থেকে ৫০ ট্রাক কলা কিনে দেশের বিভিন্ন জেলায় সরবরাহ করে থাকেন। 

তবে বর্তমানে অনুপম কলা প্রতি ঘাউর ৫শ থেকে ৬শ টাকা, চিনি চাম্পা ৩শ থেকে ৪শ টাকা এবং সাগর কলা ২শ থেকে ৩শ টাকা দরে কেনাবেচা হচ্ছে বলে তারা জানান। 

ওইসব বেপারিরা আরো বলেন, কলার এই দুই মোকাম থেকে কলা রাজধানী ঢাকাসহ, চট্টগ্রাম, সিলেট, বগুড়া, নওগাঁ, জয়পুরহাট, রংপুর, লালমনিরহাট, টাঙ্গাঈল, পাবনা, সিরাজগঞ্জ, রাজশাহী, নাটোরসহ দূর-দূরান্তের বিভিন্ন বিভাগীয়, জেলা-উপজেলা শহরে চলে যায়। প্রতি ট্রাকে গড়ে কমপক্ষে ৩ লাখ টাকার কলা লোড হয়ে থাকে। 

তবে পরিবহন ভাড়া অতিরিক্ত হওয়ায় খুব একটা লাভ হয়না বলে অভিযোগ করেন অনেকেই। 

কলাচাষি সাইফুল, এনামুল, মোজাম, নজরুল, আল-আমিনসহ একাধিকরা জানান, ফাঁসিতলা মোকাম থেকে প্রত্যেক হাটবারে গড়ে ৩০ ট্রাক ও চ-ীহারা থেকে গড়ে ১৫/২০ ট্রাকের মতো কলা বর্তমানে বিক্রি হচ্ছে। 

এ প্রসঙ্গে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ ফরিদুর রহমান বলেন, কলা সারাবছরই উৎপাদন হয়ে থাকে। এ জেলার চাষিরা অনুপম ও চাম্পা কলা বেশি চাষ করে থাকেন।

বাৎসরিক হিসাব অনুযায়ী জেলায় বছরে প্রায় ১ হাজার ৫০ হেক্টর জমিতে কলা উৎপাদন হয়ে থাকে। এতে মোট উৎপাদন দাঁড়ায় ২০ হাজার ৪৭৫ টন। 

বাবু/জেআর

এ জাতীয় আরো খবর

পর্যটনের সম্ভাবনাময় গাঙ্গাটিয়া জমিদার বাড়ি

পর্যটনের সম্ভাবনাময় গাঙ্গাটিয়া জমিদার বাড়ি

চিরিরবন্দরে বাণিজ্যিকভাবে ব্রোকলি চাষ সারা জাগিয়েছে

চিরিরবন্দরে বাণিজ্যিকভাবে ব্রোকলি চাষ সারা জাগিয়েছে

প্রকৃতির সাথে যুদ্ধ করে বেঁচে আছে চরবাংলার মানুষ

প্রকৃতির সাথে যুদ্ধ করে বেঁচে আছে চরবাংলার মানুষ

গরুর বদলে স্ত্রী-সন্তানকে দিয়ে জমিতে মই দিচ্ছেন কৃষক

গরুর বদলে স্ত্রী-সন্তানকে দিয়ে জমিতে মই দিচ্ছেন কৃষক

বারোমাসি আম চাষে কৃষি উদ্যোক্তা সিরাজুলের সাফল্য

বারোমাসি আম চাষে কৃষি উদ্যোক্তা সিরাজুলের সাফল্য

ভাগ্য ফেরেনি রাজার কাঠ মিস্ত্রির

ভাগ্য ফেরেনি রাজার কাঠ মিস্ত্রির